আজ || সোমবার, ০৪ জুলাই ২০২২
শিরোনাম :
  বঙ্গবন্ধু পরিষদ খুলনা মহানগর শাখার সহ- বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক হয়েছেন গৌতম       তালা শহীদ মুক্তিযোদ্ধা মহাবিদ্যালয়ের ৪ শিক্ষার্থী ঢাবিতে চান্স পেয়েছে       তালা উপজেলা পর্যায়ে জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহে শ্রেষ্ঠ হলেন যারা       তালায় গৃহশিক্ষককে না পেয়ে ঘর ভাংচুর!       সামান্য বৃষ্টি হলেই পানি জমে তালা সরকারি কলেজ সড়কে       তালায় মোটরসাইকেল চোর চক্রের দুই সদস্য গ্রেফতার       স্বল্পোন্নত থেকে উন্নয়নশীল অর্থনীতিতে উত্তরণের চ্যালেঞ্জ’– বিষয়ক সেমিনার অনুষ্ঠিত       তালা মহিলা কলেজ থেকে ঢাবিতে চান্স পেয়েছে সামিয়া ও প্রজ্ঞা       তালায় রথযাত্রা উৎসব শুরু       ঈদুল আজহা ১০ জুলাই    
 


আম্ফানে লন্ডভন্ড তালা মাগুরা পীরশাহ জয়নুদ্দীন মাদ্রাসা

সুপার ঘূর্ণিঝড় আম্ফানে মূহুর্তেই তছনছ করে দিয়েছে সাতক্ষীরা তালা উপজেলার মাগুরা পীরশাহ জয়নুদ্দীন দাখিল মাদ্রাসাটি। প্রতিষ্ঠানটির ৬ টি শ্রেণীকক্ষ সম্পূর্ণ তিগ্রস্ত হয়েছে ভবনের পাশাপাশি মাদ্রাসার চেয়ার.টেবিল ও আসবাবপত্র নষ্ট হয়ে প্রায় ৫ লাধিক টাকার তিসাধন হয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে উন্নয়ন বঞ্চিত মাদ্রাসা কর্তৃপ মাদ্রাসা সংষ্কারে সরকারের সংশ্লিষ্ট উর্দ্ধতন কর্তৃপরে জরুরী হস্তপে কামনা করেছেন।
শনিবার সকালে সরেজমিনে প্রতিবেদনকালে মাদ্রাসাটিতে গেলে দেখা যায় শিশু শ্রেণী থেকে ৬ষ্ট পর্যন্ত প্রায় সব শ্রেণীর শিার্থীদের কাসরুম লন্ডভন্ড দেখা যায়। ভবন সংষ্কারে জরুরী ভিত্তিতে পদপে না নিলে সেখানকার শিা ব্যবস্থা সম্পূর্ণরুপে ভেঙ্গে পড়বে বলে আশংকা করেন সেখানকার শিক, শিার্থীসহ অভিভাবকমহল।
অত্র মাদ্রাসার সুপার মাওলানা মোঃ আলাউদ্দীন জানান, ১৯৫৮ সালে মাদ্রাসাটি প্রতিষ্ঠিত হলেও অদ্যবধি মাদ্রাসাটিতে কোন উন্নয়নের ছোয়া লাগেনি।
সারাদেশের ন্যায় তালার সামগ্রিক উন্নয়নের সোনালী সময়েও কার্যত উন্নয়ন বঞ্চিত থাকে মাদ্রাসাটি। তবে সেখানকার শিক ও পরিচালনা পরিষদের যৌথ প্রচেষ্টায় শিার মানও বরাবরই ঈর্ষণীয়।
এ সময় ােভ ও দুঃখ প্রকাশ করে মাদ্রাসার সহ-সুপার মোঃ আবু বকর মেল্যা জানান,স্বাধীনতার পূর্বে প্রতিষ্ঠিত মাদ্রাসাটি সংষ্কার কোটাতেও রাখা হয়নি । বরাবর উন্নয়ন বঞ্চিত থাকলেও সকলের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় মাদ্রাটিতে প্রায় ৩ শতাধিক শিার্থী রয়েছে। মাদ্রাসা শিা েেত্র বিদ্যাপীঠটি সাতীরার শিা উন্নয়নে ব্যাপক ভূমিকা রাখলেও মাদ্রাসার উন্নয়নে এখন পর্যন্ত কেউ দৃশত কোন ভুমিকা রাখেনি।
ঠিক এমন পরিস্থিতিতে মাদ্রাসাটি ঝড়ের কবলে পতিত হওয়ায় শিা ব্যবস্থা এগিয়ে নিতে মূলত নানা আশংকা জেঁকে বসেছে সেখানকার শিার্থীসহ শিক ও অভিভাবকদের। কর্তৃপরে পাশাপাশি এলাকাবাসীর প্রাণের দাবি যতদ্রুত সম্ভব মাদ্রাসাটির আশু সংষ্কারে বরাদ্দ দেয়া হোক।


Top