আজ || সোমবার, ০৪ জুলাই ২০২২
শিরোনাম :
 


সাতক্ষীরায় আ’লীগের বর্ধিত সভা: সব ভেদাভেদ ভুলে অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখতে দলকে শক্তিশালী করার আহবান

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সাতক্ষীরা জেলা শাখার বিশেষ বর্ধিত সভায় কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ বলেছেন, দলীয় প্রতীকের বিরুদ্ধে প্রার্থী হলে চিঠি বা কোন নির্দেশনা ছাড়াই দল থেকে বহিষ্কার করা হবে। আওয়ামী লীগ বিভক্ত হয়নি, বিভক্ত হয়েছেন কতিপয় নেতা।

যারা দলের বড় পদ নিয়ে বসে থাকবে, অথচ কাজ করবে না, তাদের দলে দরকার নেই। কোন জামায়াত-বিএনপি ও হাইব্রিডকে দলে ঢোকানো যাবে না। এরা দলের ভাল চায় না। তারা দলের ভিতরে থেকে দলের ক্ষতি করে। এজন্য সকলকে সজাগ থাকতে হবে। সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে রাজনীতিকভাবে স্বাধীনতা বিরোধীদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে। আগামী মহান জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে দলের অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখতে দলকে শক্তিশালী করতে হবে। এজন্য দ্রুত সকল বিভেদ ভুলে ২৮ জুনের মধ্যে সকল কাউন্সিল শেষ করতে হবে।

শুক্রবার (০৩ জুন) বেলা সাড়ে ১১টায় সাতক্ষীরা জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও সাবেক সাংসদ বীর মুক্তিযোদ্ধা এ কে ফজলুল হকের সভাপতিত্বে এবং জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদের প্রশাসক নজরুল ইসলামের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় অতিথিবৃন্দ এসব কথা বলেন।

সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য কাজী জাফরউল্লাহ।

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য পীযুষ কান্তি ভট্টাচার্য্য, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য অধ্যাপক ডা. আ ফ ম রুহুল হক এমপি, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কৃষিবিদ আ ফ ম বাহাউদ্দীন নাছিম, সাংগঠনিক সম্পাদক বি এম মোজাম্মেল হক, কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য অ্যাড. মো. আমিরুল আলম মিলন এমপি, কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য পারভীন জামান কল্পনা, কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য অ্যাড. গ্লোরিয়া সরকার ঝর্না, সাতক্ষীরা-২ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর মোস্তাক আহমেদ রবি ও সাতক্ষীরা-৪ আসনের সংসদ সদস্য এস এম জগলুল হায়দার।

সভায় কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের আহবানে বক্তব্য রাখেন সাতক্ষীরা সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মো. আসাদুজ্জামান অসলে, শিবপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. শওকাত আলী, আলিপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মশিউর রহমান (ময়ুর ডাক্তার), বাঁশদহা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও ইউপি চেয়ারম্যান মাস্টার মো. মফিজুর রহমান, শ্যমনগরের অসীম কুমার মৃধা প্রমুখ।

এসময় তৃণমূল নেতৃবৃন্দ জামায়াত-বিএনপি থেকে আসা হাইব্রিডদের দ্বারা ইউপি নির্বাচনে একাধিক বিদ্রোহী প্রার্থীর অত্যাচার এবং তাদের কারণে ইউপি নির্বাচনে নৌকার পরাজয় হয়েছে বলে উল্লেখ করেন এবং সেই সাথে হাইব্রিডদের দল থেকে বহিষ্কার করার দাবি করেন।

সভায় অন্যান্যদের মধ্যে জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি ইঞ্জিনিয়র শেখ মুজিবুর রহমান, সাবেক সাংসদ ডা. মোখলেছুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি কাজী এরতেজা হাসান, বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. শহীদুল ইসলাম, বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক আবু আহমেদ, বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ শাফী আহমেদ, মাস্টার নীলকণ্ঠ সোম, শেখ সাহিদ উদ্দিন, মিসেস সাহানা মহিদ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ ফিরোজ কামাল শুভ্র, মো. আসাদুজ্জামান বাবু, আ. হ. ম তারিক উদ্দীন, আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট ওসমান গনি, কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক ডা. মুনছুর আহমেদ, শিক্ষা ও মানবসম্পদ বিষয়ক সম্পাদক লাইলা পারভীন সেঁজুতি, তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক আফসার আহমেদ, ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আজহারুল ইসলাম, দপ্তর সম্পাদক শেখ হারুন-উর-রশিদ, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক আরাফাত হোসেন, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক অ্যাডভোকেট অনিত কুমার মুখার্জী, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক জিএম ফাত্তাহ, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক শিমুন শামস্, মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা সন্তোষ কুমার সরকার, যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক শেখ আব্দুল কাদের, শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক শেখ এজাজ আহমেদ স্বপন, শ্রম বিষয়ক সম্পাদক সরদার মুজিব, সংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক শামীমা পারভীন রতœা, স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ডা. সুব্রত কুমার ঘোষ, সাংগঠনিক সম্পাদক জিএম শফিউল আযম লেনিন, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. আতাউর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক কাজী আকতার হোসেন, উপ-দপ্তর সম্পাদক শেখ আসাদুজ্জামান লিটু, উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক প্রভাষক প্রণব ঘোষ বাবলু, কোষাধ্যক্ষ রাজ্যেশ্বর দাস, নির্বাহী কমিটির সদস্য এসএম শওকত হোসেন, এবিএম মোস্তাকিম, অ্যাডভোকেট মোজহার হোসেন কান্টু, শেখ নুরুল ইসলাম, নরীম আলী মাস্টার, মো. মুজিবুর রহমান, ফিরোজ আহমেদ স্বপন, শেখ নাসেরুল হক, শেখ আব্দুর রশিদ, মো. শাহ্জাহান আলী, মো. সাহাদাত হোসেন, ঘোষ সনৎ কুমার, এসএম আতাউল হক দোলন, মো. মনিরুজ্জামান মনি, আমিনুল ইসলাম লাল্টু, সাঈদ মেহেদী, মো. আব্দুল কাদের, সাজেদুর রহমান খান চৌধুরী মজনু, ফিরোজ আহমেদ, অধ্যক্ষ জাফরুল আলম বাবু, মীর মোশারফ হোসেন মন্টু, মো. আসাদুজ্জামান অসলে, অ্যাডভোকেট সৈয়দ জিয়াউর রহমান বাচ্চু, এনামুল হক ছোট, ইঞ্জিনিয়র মেহেদী হাসান সুমন, মিসেস কহিনুর ইসলাম, মোস্তাফিজুর রহমান নাসিম, শেখ মনিরুল হোসেন মাসুম, নাজমুন নাহার মুন্নি, মো. সামছুর রহমান, মীর জাকির হোসেন, মিসেস মাহফুজা রুবি, ইসমত আরা বেগম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

সভার শুরুতে পবিত্র কোরআন তেলওয়াত ও প্রয়াত নেতৃবৃন্দকে স্মরণে ১ মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।


Top