আজ || মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর ২০২২
শিরোনাম :
  তালায় ৮ দলীয় ফুটবল টুর্নামেন্টে সৈকত একাডেমি চ্যাম্পিয়ন       তালায় বাল্যবিয়ে প্রতিরোধ বিষয়ক সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত       সাতক্ষীরায় সেবাপ্রদানকারী প্রতিষ্ঠানের সাথে কনসালটেশন ম্যাপিং সভা       শ্যামনগরে ঝুঁকিপূর্ণ শিশুশ্রম নিরসন প্রকল্পের মুক্ত আলোচনা       শ্যামনগরে একে ফজলুল হক এমসিএ কলেজে সুধী সমাবেশ       শ্যামনগর উপজেলা অনলাইন নিউজ ক্লাবের কমিটি গঠন, সভাপতি মিলন, সম্পাদক বাবুল       নীতি-আদর্শের কারনে সাংবাদিকরা যে সম্মানিত হতে পারে সুভাষ চৌধুরী তার অনন্য উদাহরণ –মনজুরুল আহসান বুলবুল       সাতক্ষীরায় জেলা কৃষকলীগের তৃণমূলের মতামত কে উপেক্ষা করে কমিটি ঘোষনার প্রতিবাদে জেলা কৃষকলীগের অধিকাংশ কাউন্সিলরদের সংবাদ সম্মেলন       বঙ্গবন্ধুর মাজার জিয়ারত ও শ্রদ্ধা নিবেদন করল সাতক্ষীরা জেলা পরিষদ       পদ্মপুকুরে মত বিনিময় সভা অনুষ্ঠিত    
 


তালায় অবৈধ ডায়াগনস্টিক সেন্টারের বিরুদ্ধে অভিযান চালিয়েছে উপজেলা প্রশাসন

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ

সাতক্ষীরার তালায় বেসরকারি ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারে অভিযানের কথা জানতে পেরে বন্ধ করে পালিয়ে যায় অধিকাংশ ডায়াগনস্টিক সেন্টার।

সোমবার (৩০ মে) তালার সকল বেসরকারি ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারে অভিযানের তথ্য পেয়ে কয়েকটি ডায়াগনস্টিক সেন্টার বন্ধ করে পালিয়ে যায় তারা।

পরবর্তীতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা প্রশান্ত কুমার বিশ্বাস তার অফিসে সকল ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারের মালিক এবং কর্মকর্তাদের ডেকে পাঠান এবং কাগজপত্র পর্যবেক্ষণপূর্বক নির্দেশনা প্রদান করেন।

তালার ২ টি বেসরকারি ক্লিনিক ও ৫টি ডায়াগনস্টিক সেন্টারের মধ্যে ৩ টি ডায়াগনস্টিক সেন্টারের কোনো কাগজপত্র নেই, ১টি ডায়াগনস্টিক ও ২ টি ক্লিনিকের কাগজপত্র থাকলেও তা হালনাগাদ করা নয় এবং একটি মাত্র ডায়াগনস্টিক সেন্টারের কাগজপত্র সঠিক রয়েছে।

সঠিক কাগজপত্র না থাকায় এ.আর ডায়াগনস্টিক সেন্টার, সততা ডায়াগনস্টিক সেন্টার ও তালা ডায়াগনস্টিক সেন্টারকে বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

এছাড়া কাগজপত্র হালনাগাদ না থাকায় দ্রুত কাগজপত্র হালনাগাদ করার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে তালা স্যার্জিক্যাল ক্লিনিক, নিউ জনসেবা ক্লিনিক ও জে.এস ডায়াগনস্টিক সেন্টারকে।

এদিকে তালা লাইফ কেয়ার ও কনসালটেশন সেন্টারের বৈধ কাগজপত্র থাকায় কার্যক্রম চালানোর ক্ষেত্রে কোন বাধা নেই বলে জানিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা প্রশান্ত কুমার বিশ্বাস।


Top