আজ || শনিবার, ০২ জুলাই ২০২২
 


কালিগঞ্জের তেঁতুলিয়া বিলে শতাধীক ঘেরের পানি নিস্কাশনের পথবন্ধের অভিযোগ উঠেছে নেওয়াজ সানার বিরুদ্ধে

কালিগঞ্জের পল্লীতে করোনা’র লকডাউনের সুযোগে শতাধীক মৎস্য ঘেরের পানি নিস্কাশনের নালা বন্ধ করার পায়তার করছে একটি স্বার্থান্বেশী মহল। ফুঁসে উঠেছে ঘের ব্যবসায়ীসহ স্থানীয় গ্রামবাসী। ঘটনাটি উপজেলার তেঁতুলিয়া বিলে ঘটেছে। স্থানীয় ঘের মালিকসুত্রে জানাগেছে, উপজেলার তারালী ইউনিয়নের তেঁতুলিয়া বিলে হাজার হাজার বিঘা জমি নিয়ে ৩০/৪০ বছর যাবত মৎস্যঘের করে আসছে এলাকার শতাধীক ব্যাক্তিবর্গ। ঐসকল ঘেরের পানি উঠানামা’র ক্যানেল ঘের মালিকদের দেওয়া জমি দিয়েই শান্তিপুর্ণ ভাবে চলমান আছে। সকলের সুবিধার্থে ব্যবহার্য ঐ ক্যানেলটি পুর্ব পরিকল্পিতভাবে রবিবার (১৯ এপ্রিল) সকালে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে মানুষ যখন ঘরেবন্দী ঠিক সেই সুযোগে তেঁতুলিয়া গ্রামের মৃত রাজ্জাক সানা’র পুত্র পরসম্পদলোভী বাদশা নেওয়াজ সানা লোকজন নিয়ে ক্যানেল বন্ধের চেষ্টা চালায়। ক্যানেল বন্ধের এঘটনা জানতে পেরে সংশ্লীষ্ট বিলের ঘের মালিকদের মধ্যে ব্যাপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। যে কোন মুহুর্তে আইন শৃংখলা পরিস্থির অবনতি হওয়ার আশংঙ্কা করছে সচেতন এলাকাবাসী। তর্থ্যানুসন্ধানকালে ঘের মালিক মোঃ মাজারুল ইসলাম, লিঠন হোসেন, তারিফুর রহমান তারিফ, আব্দুল জলিল, রফিকুল ইসলাম, মিজানুর রহমান, নিউটন, জনি, শাহিন, মিজানুর রহমান, নুজাত জানান, দীর্ঘ ৩০ বছরের পানি নিস্কাশনের পথটি বন্ধের পায়তারা করছে এলাকার বিতর্কিত ও পর সম্পদলোভী বাদশা নেওয়াজ। বর্তমান করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সকলেই যখন নিরাপদে নিজ বাড়িতে অবস্থান করছে ঠিক তখনিই বৃহৎ জনগোষ্ঠির ক্ষতি করার চেষ্টায় আছে নেওয়াজ। তার হীনচেষ্টার প্রতিবাদে এলাকার মানুষ ফুঁসে উঠেছে। ঘটতে পারে অনাকাঙ্খিত ঘটনা। একারণেই বাদশা নেওয়াজ এর হীন কর্মকন্ডের বিরুদ্ধে পুলিশ ও প্রশাসনের উদ্ধতন কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ এবং আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের দাবী জানিয়েছেন ক্ষতিগ্রস্থরা।


Top