ব্রেকিং নিউজঃ

 কলারোয়ায় একই পরিবারের চারজনকে হত্যার ঘটনায় গ্রেপ্তার আরও ৩

নিজস্ব প্রতিনিধি:

  • প্রকাশিত: বুধবার, ২১ অক্টোবর ২০২০, ০৯:৫০
  • ১২২
হত্যার শিকার চারজন।
হত্যার শিকার চারজন।

সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলার খলিসা গ্রামের চাঞ্চল্যকর স্বামী-স্ত্রী ও তাঁদের দুই সন্তানসহ চার জনকে হত্যার ঘটনায় আরও তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

নিহত শাহিনুরের ছোট ভাই আটক রায়হানুলের দেওয়া তথ্যমতে মঙ্গলবার (২০ অক্টোবর) বিকেলে তাঁদের গ্রেপ্তার করা হয়। পরে আদালতের মাধ্যমে তাদেরকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

আজ বুধবার তাঁদের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ১০ দিন করে রিমান্ড আবেদন করা হবে। এ নিয়ে মামলায় চারজনকে গ্রেপ্তার দেখানো হলো।

গ্রেপ্তার তিনজন হলেন উপজেলার খলিসা গ্রামের আবদুর রাজ্জাক, একই গ্রামের আবদুল মালেক ও ধানঘরা গ্রামের আসাদুল ইসলাম। এদের মধ্যে রাজ্জাক ও মালেক নিহত শাহিনুরের নিকট প্রতিবেশি এবং আসাদুল ইসলাম নিহত শাহিনুরের হ্যাচারির কর্মচারী বলে জানাগেছে।

কলারোয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হারান পাল জানান, গত সোমবার ঢাকা রেঞ্জের সিআইডির অতিরিক্ত উপমহাপরিদর্শক ওমর ফারুক ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে স্থানীয় ও নিহত ব্যক্তিদের স্বজনদের সঙ্গে কথা বলেন। মঙ্গলবার তিনি পুনরায় ঘটনাস্থলে আসেন। বিকেলে ওই তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

প্রসঙ্গত, গত ১৫ অক্টোবর (বৃহস্পতিবার) ভোর রাতে কলারোয়া উপজেলার হেলাতলা ইউনিয়নের খলিসা গ্রামের শাহাজান আলীর ছেলে মৎস্য হ্যাচারী মালিক শাহিনুর, তাঁর স্ত্রী সাবিনা খাতুন, ছেলে সিয়াম হোসেন মাহী ও মেয়ে তাসনিম সুলতানাকে জবাই করে হত্যা করে দূর্বৃত্তরা। এ সময় নারকীয় এই হত্যাকাণ্ডের মধ্যে ঘাতকদের হাত থেকে প্রাণে বেঁচে যায় তাদের চার মাসের শিশু কন্যা মারিয়া সুলতানা।

এ ঘটনায় শাহিনুরের শাশুড়ি ময়না খাতুন বাদী হয়ে কারও নাম উল্লেখ না করে কলারোয়া থানায় হত্যা মামলা করেন। সে মামলার তদন্তের দায়িত্ব দেওয়া হয় সিআইডির পুলিশ পরিদর্শক শফিকুল ইসলামকে। পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য শাহিনুরের ছোট ভাই রায়হানুলকে আটক করে। পরে রায়হানুলকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতে কাছে ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন জানানো হয়। উভয় পক্ষের রিমান্ড শুনানি শেষে বিজ্ঞ জুডিশিয়াল আদালত-২ এর বিচারক সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট ইয়াসমিন নাহার ৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

কলারোয়া আদালত পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) কায়েস মাহমুদ জানান, আসামিদের আদালতে পাঠানোর প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, রিমান্ডে নেওয়া রায়হানুল হকের জবানবন্দি অনুযায়ী ওই তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বুধবার তাঁদের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রিমান্ড আবেদন করা হবে।

অন্যকে জানাতে শেয়ার করুন

আরও পড়ুন